..:: বিজ্ঞাপন ::..

ওয়েব ডেস্ক, ৪ ডিসেম্বর।। এমপি বিড়লা স্কুলে বিক্ষোভকারী অভিভাবকদের ছত্রভঙ্গ করতে ‘লাঠিচার্জ’ করল পুলিস। ঘটনাকে ঘিরে সোমবার সন্ধ্যায় রণক্ষেত্রের চেহারা নিল জেমস লং সরণী। মহিলাদের ওপরেও পুলিস এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। খুদে পড়ুয়ার যৌন নিগ্রহের প্রতিবাদে সোমবার সকাল থেকেই স্কুল চত্বরে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন অভিভাবকরা। অভিযুক্ত ২জনকে গ্রেফতারির দাবিতে চলতে থাকে বিক্ষোভ। চাপের মুখে পড়ে কিছুটা হলেও নতিস্বীকার করে স্কুল কর্তৃপক্ষ। অভিযুক্ত পিওন মনোজকে সাসপেন্ড করা হয়। কিন্তু তাতে চিঁড়ে ভেজেনি। অভিভাবকরা স্পষ্ট জানিয়ে দেন, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা না হলে বিক্ষোভ চলতে থাকবে। জেমস লং সরণী অবরোধ করে জারি থাকবে বিক্ষোভ। স্কুলের ভিতরেই আটকে থাকেন শিক্ষকরা। সন্ধ্যা গড়াতেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। বিক্ষোভকারী অভিভাবকদের হঠানোর চেষ্টা করলেই পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয় অভিভাবকদের। অভিযোগ, এরপরই লাঠিচার্জ করতে থাকে পুলিস। মহিলাদেরও মাটিতে ফেলে মারা হয় বলে অভিযোগ। পুলিসের লাঠিচার্জ বিক্ষোভে ঘি ঢালে। রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন নির্যাতিতার বাবা। তাঁর অভিযোগ, ‘সেপ্টেম্বরে এফআইআর করেও, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেনি পুলিস। অথচ মহিলাদের ওপর লাঠিচার্জ করল? এটি কোন গণতন্ত্র? ‘ তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এই ভাবে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না। অভিযুক্তের কড়া শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন জারি থাকবে। অভিভাবকদের ওপর লাঠিচার্জের ঘটনায় নিন্দার ঝড় সব মহলে।