..:: বিজ্ঞাপন ::..

ওয়েব ডেস্ক, ৭ জুলাই।। ঈদের নমাজ শুরুর আগে ঝরল রক্ত। ফের সন্ত্রাসবাদী হামলার শিকার হল বাংলাদেশ। কিশোরগঞ্জের ইদগাহে হামলা চালাল সন্দেহভাজন জঙ্গিরা। দুই পুলিসকর্মী-সহ নিহত চার। আহত এক সন্ত্রাসবাদীকে ধরে ফেলে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিস। গুলশনের জঙ্গি হামলার ক্ষত এখনও শুকোয়নি। ছ-দিনের মাথায় আবার হামলা। ঈদের দিনেও রক্তাক্ত হল বাংলাদেশ। এবার সন্ত্রাসবাদীদের টার্গেট ঢাকা থেকে ১৪৪ কিলোমিটার দূরে কিশোরগঞ্জ। কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ইদগাহের কাছে পুলিসের ওপর হামলা চালায় তারা। বৃহস্পতিবার সকাল ন-টা। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শোলাকিয়া ইদগাহে তখন দুলক্ষ মানুষ নমাজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। গুলশন হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধা জানাচ্ছে ঢাকা। হঠাতই সন্ত্রাসবাদীদের হামলা। গুলশন হামলার পর ঈদের দিন বাংলাদেশের সর্বত্রই কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়।
ওয়েব ডেস্ক, ২ জুলাই।। অপারেশন থান্ডার বোল্ড। রুদ্ধশ্বাস ১৩ মিনিটের অপারেশনে গুলশনের হোলে আর্টিজান কাফে জঙ্গিমুক্ত করে সেনা। কাফে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ২০ জন পণবন্দির দেহ। গতরাতে নৃশংসভাবে তাদের কুপিয়ে খুন করে জঙ্গিরা। এদের মধ্যে অধিকাংশই জাপান ও ইতালির নাগরিক। সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ সেনার তরফে একথা জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ সেনাপ্রধান আরও জানান, রাত থেকেই গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অপারেশনের প্রস্তুতি শুরু করেছিল সেনা। শেষ পর্যন্ত সকাল ৭টা ৪০ নাগাদ শুরু হয় অল আউট অপারেশন। ছয় জঙ্গিকে হত্যা করে কাফের ভিতর ঢুকে পরে সেনা। এক জঙ্গিকে ধরে ফেলতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ সেনা। জঙ্গিদের কাছে ছিল AK-২২ রাইফেল, পিস্তল। এরপর সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত চলে চিরুনি তল্লাশি। মৃত্যু হয়েছে দুই পুলিস আধিকারিকের। ১৩ জন পণবন্দিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।
ওয়েব ডেস্ক, ২ জুলাই।। জঙ্গিমুক্ত গুলশনে হোলে অর্টিসান বেকারি। সেনা অভিযানে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে ৬ জঙ্গি। একজন জঙ্গিকে জীবিত অবস্থায় ধরেছেন কম্যান্ডোরা। পণবন্দিদের জঙ্গিদের হাত থেকে মুক্ত করতে অভিযান চালায় ১০০ জন এলিট কম্যান্ডো।" ঢাকা-চট্টগ্রাম ও জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ চার লেনের সড়ক উদ্বোধন করতে এসে সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আইডি উদ্ধার করা হয়েছে। বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করার কাজ চলছে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা অত্যন্ত তত্পর ছিল। পুলিশ, RAB-ও ঘটনাস্থলে মোতায়েন ছিল। ২ পুলিস অফিসার সহ চারজনের মৃ্ত্যু হয়েছে। আহত ৩৫। অত্যন্ত তত্পরতার সঙ্গে ১০ ঘণ্টারও কম সময়ে জঙ্গি নিধন অভিযানে সাফল্য এসেছে।"