..:: বিজ্ঞাপন ::..

ওয়েব ডেস্ক, ১৭ এপ্রিল।। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে আজ ৭ জেলার মোট ৫৬টি বিধানসভা কেন্দ্রে চলছে ভোটগ্রহণ। এর মধ্যে রয়েছে আলিপুরদুয়ারের ৫টি, জলপাইগুড়ির ৭টি, দার্জিলিঙের ৬টি, উত্তর দিনাজপুরের ৯টি, দক্ষিণ দিনাজপুরের ৬টি, মালদহের ১২টি ও বীরভূমের ১১টি বিধানসভা কেন্দ্র। ভাগ্য নির্ধারণ হবে ৩৮৪ জন প্রার্থীর। আজকের ভোটে সরকার- বিরোধী উভয়পক্ষেই হেভিওয়েটের ছড়াছড়ি। শিলিগুড়ি মেয়র অশোক ভট্টাচার্যের কাছে আজ ফের অগ্নিপরীক্ষা। তেমনই পরের পর হারের পর এবার জিততে মরিয়া গৌতম দেবও। আজ তাঁর কাছে প্রেস্টিজ ফাইট। তবে আজকের ভোটে মূল 'ফোকাস' বীরভূম। একাই 'লাইমলাইট' কেড়ে নিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। কমিশনের নজরদারির নিষেধাজ্ঞাকে থোরাই কেয়ার করে কাল শেষ বেলাতেও বিভিন্ন পার্টি অফিসে গিয়ে রুদ্ধধার বৈঠক করতে দেখা যায় তৃণমূল বীরভূম জেলা সভাপতিকে।
ওয়েব ডেস্ক, ১৭ এপ্রিল।। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শোকজের জবাব কী করে দিলেন মুখ্যসচিব? ফের প্রশ্ন তুললেন বিমান বসু। তৃণমূল নেত্রীকে শোকজের জবাব সরকারি আমলা দেওয়া মানে সরকার এবং দল এক হয়ে গিয়েছে। বললেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান। শুধু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন, বামফ্রন্ট চেয়ারম্যানের নিশানায় ছিলেন বীরভূমের নেতা অনুব্রত মণ্ডলও। অনুব্রতকে নজরবন্দি স্রেফ একটা নাটক। বললেন বিমান বসু। বীরভূম জেলার ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করলে তো এমনই হবে। কমিশনের উচিত ছিল জেলার বাইরের কোনও ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়োগ করা। নাম না করে কমিশনকে এইভাবেই দুষলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু।
ওয়েব ডেস্ক, ১৭ এপ্রিল।। বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল ওরফে 'কেষ্ট'র বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করছে নির্বাচন কমিশন। ভারতীয় ফৌজদারি দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারা অনুযায়ী বীরভূমের দাপুটে নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর। সরকারি নির্দেশকে অমান্য করার জন্যই এফআইআর করা হবে বলে কমিশন সূত্রে খবর। তৃতীয় দফা ভোটের আগে অনুব্রত মণ্ডলের ওপর নজরদারি ছিল কমিশনের। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, "বীরভূমে সন্ত্রাস চালাচ্ছে তৃণমূল। আর তার নেতৃত্ব দিচ্ছে অনুব্রত মণ্ডল"। বিরোধীদের অভিযোগের ভিত্তিতে ভোটের দিন অনুব্রত মণ্ডলকে নজরবন্দি করে কমিশন। এরপরও বিতর্কে জড়ান এই দাপুটে নেতা। ভোট দিতে গিয়ে জামায় তৃণমূলের প্রতীক লাগিয়ে ভোট দেন অনুব্রত মণ্ডল। অবশ্য এই বিষয়ে অনুব্রত মণ্ডলের পাশেই দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের শীর্ষনেতা ও রাজ্য সভার সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েন।