ত্রিপুরা ৪৮০২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকার আর্থিক সুবিধা পেতে পারে : মুখ্যমন্ত্রী
ত্রিপুরা ৪৮০২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকার আর্থিক সুবিধা পেতে পারে : মুখ্যমন্ত্রী

আগরতলা, ২২ মে।। কোভিড-১৯ এবং লকডাউনজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী ২০ লক্ষ কোটি টাকার যে আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন এর ফলে ত্রিপুরা বিভিন্ন প্রকল্প এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে ৪৮০২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকার আর্থিক সুবিধা পেতে পারে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে রাজ্যের বিভিন্ন দপ্তরের মাধ্যমে এবং কোন কোন ক্ষেত্রে সরাসরি সুবিধাভোগীরা বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হবে। আজ মহাকরণে আহূত এক জনাকীর্ণ সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্য কি কি ক্ষেত্রে এই প্যাকেজের সুবিধা পেতে পারে তা বিস্তারিত তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। তিনি বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঋণের সুবিধা নিয়ে স্বনির্ভর হওয়ার মাধ্যমে এই সুবিধা পেতে পারেন রাজ্যবাসী। তবে এর জন্য সুবিধাভোগীদের সচেতন হতে হবে এবং নিজ নিজ স্কীম সম্পর্কে জানতে হবে, তবেই এই প্যাকেজের সুফল পাবেন সুবিধাভোগী এবং সেই সঙ্গে রাজ্য। এই আর্থিক প্যাকেজে কৃষক, প্রাণীপালক, মৎস্যচাষী, উদ্যানচাষী, মৌমাছি পালক, ক্ষুদ্র, অতিক্ষুদ্র, মাঝারি শিল্প উদ্যোগী, ব্যবসায়ী, অস্থায়ী দোকানদার, ঠিকাদার, অসংগঠিত শ্রমিক, পরিযায়ী শ্রমিক ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্তরা উপকৃত হবেন। প্যাকেজটি গ্রামীণ অর্থনীতিকে যেমন মজবুত করবে তেমনি শিল্প ক্ষেত্রেরও অগ্রগতি হবে। প্যাকেজের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রী জানান, অতিক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্পে রাজ্যের প্রায় ১০০টি এম এস এম ই ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণের সুবিধা পাবে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্যের ৩৫ হাজার ৬৩৬ জন কৃষকের ঋণের কিস্তি প্রদান ৩ মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। রাজ্যের ১ লক্ষ ৪২ হাজার নতুন কিষাণ ক্রেডিট কার্ডধারী কৃষক কৃষি ঋণের সুবিধা পাবেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ত্রিপুরায় ৫৪ হাজার ২৬০ জন কৃষক মার্চ এবং এপ্রিল মাসে কৃষি ঋণ পেয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে উপমুখ্যমন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মা এবং মুখ্যসচিব মনোজ কুমারও উপস্থিত ছিলেন। 

আরো পড়ুন

FACEBOOK

Advertisement